৪,৭০,০০০/- (চার লক্ষ সওর হাজার টাকা )

প্যাকেজের মেয়াদকাল : ৪২ দিন।

আবাসন ব্যবস্থা (মক্কা) : থ্রী ষ্টার হোটেল হারাম শরীফ থেকে ২০০ মিটার

আবাসন ব্যবস্থা (মদিনা) : থ্রী ষ্টার হোটেল হারাম শরীফ থেকে ২০০ মিটার দূরত্বে।

এই প্যাকেজে হজ্জযাত্রীগণ সর্বোচ্চ চব্বিশ দিন উল্লেখিত হোটেলে থাকতে পারবেন। এরপর মদিনা যাবেন। মদিনা থেকে এসে হজ্জের আগে দুই দিন হজ্জের পরে চার দিন আজিজিয়ায় থাকবেন।

মক্কা ও মদিনাতে রুম সুবিধা : সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত রুম, সংযুক্ত বাথরুম, প্রতি রুমে একটি ফ্রিজ, জন প্রতি একটি খাট, কম্বল, মেট্রেস, বেডশীট ও বালিশ, ঠান্ডা ও গরম পানির সু-ব্যবস্থা, প্রতি রুমে ৪/৫ জন করে থাকবেন।

মিনা: মিনায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত তাঁবুতে মেট্রেস, বালিশ এর ব্যবস্থা করা হবে। এজেন্সীর খরচে সৌদি মোয়াল্লিমের ব্যবস্থাপনায় দুই বেলা খাবার পরিবেশন করা হবে।

আহার : তিন বেলা বাংলাদেশি খাবার বুফে ব্যবস্থাপনায় পরিবেশন করা হবে।

জিয়ারত: মক্কা – মদিনায় দর্শনীয় স্থান সমূহ জিয়ারতের সুব্যবস্থা।

কুরবানী: প্যাকেজে কুরবানী অর্ন্তভুক্ত নয়। কুরবানীর জন্য ৫৫0 সৌদি রিয়াল সঙ্গে নিতে হবে।

পরিবহন: বিমান/ সাউদিয়া এয়ারলাইন্স।

 গাইড: এজেন্সি গড়ে ৪৫ জন হজ্জযাত্রীর জন্য একজন করে গাইড নিযুক্ত করবেন। গাইড হজ্জযাত্রীর পক্ষে বাংলাদেশ ও সৌদিআরবে প্রশাসনিক কার্যাদির সমন্বয় এবং হজ্জযাত্রীদের হজ্জের আহকাম ও আরকান পালনে সহায়তা করবেন। এছাড়া তিনি হজ্জযাত্রীদের ধর্মীয় বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করবেন। গাইডগণ হজ্জযাত্রীদের ব্যক্তিগত সহকারী বা হজ্জকর্মী নয় এবং কোন গাইড কোন হজ্জযাত্রীর ব্যক্তিগত কাজে সংশ্লিষ্ট হবেন না।

বি: দ্র: পবিত্র হ্জ্জ একটি কষ্টসাধ্য এবাদত যাহা আল্লাহপাকের খাস রহমত ছাড়া কিছুতেই পালন করা সম্ভব নয়। তাই সর্ব অবস্থায় আল্লাহর উপর ভরসা করা কর্তব্য।

শর্তাবলী

ঘোষিত প্যাকেজে  বাংলাদেশ সরকার ও সৌদি সরকার কর্তৃক যে কোন অতিরিক্ত চার্জ আরোপিত হলে তা হজ্জযাত্রীকে পরিশোধ করতে হবে।

প্রাক-নিবন্ধন হওয়ার পর যদি কোন হজ্জযাত্রী হজ্জে যেতে না পারেন/আগ্রহী না হন তাহলে প্রাক-নিবন্থন বাতিল করার ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত প্রাক-নিবন্ধন ফি ২০০০/- (দুই হাজার) টাকা, প্রসেসিং ফি ৩০০০/- (তিন হাজার) টাকা এবং এজেন্সীর প্রসেসিং ফি বাবদ ২০০০/- (দুই হাজার) টাকাসহ মোট ৭০০০/- (সাত হাজার) টাকা অফেরযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

নিবন্ধন হওয়ার পর যদি কোন হজ্জ যাত্রী হজ্জে যেতে না পারেন/আগ্রহী না হন সে ক্ষেত্রে বিমান ভাড়া এবং খাবারের টাকা ছাড়া প্যাকেজের সমুদয় অর্থ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী অফেরৎযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

মিনা থেকে মক্কায় হজ্জের তাওয়াফ ও সায়ী করার জন্য মোয়াল্লেমের কোন বাসের ব্যবস্থা না থাকায় হজ্জযাত্রীদের এজেন্সীর ব্যবস্থাপনায় নিজ খরচে আসা-যাওয়া করতে হবে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হজ্জের সমস্ত বকেয়া টাকা পরিশোধ করলে ২৪ ঘন্টা পূর্বে পাসপোর্ট, রিকনফার্ম টিকেট এবং প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র হাজী সাহেবদেরকে দেয়া হবে ইনশাআল্লাহ।

হজ্জযাত্রীদের প্যাকেজ মূল্যের সমুদয় অর্থ সরকার ঘোষিত নির্ধারিত তারিখের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ব্যাংক একাউন্টে অবশ্যই জমা করতে হবে।

বর্তমানে অনলাইন সিস্টেমে হোটেল বুকিং বাধ্যবাধকতার কারনে মদিনার অবস্থান কাল অনলাইন সিস্টেম কর্তৃক গ্রহণ করার উপরে (৮/৯/১০দিন যাতায়াতসহ) মদিনায় অবস্থান বিবেচিত হবে।

মক্কা থেকে মদিনা শরীফ, জেদ্দায় যাতায়াত পথে ও জেদ্দা বিমান বন্দর এবং ঢাকার হজ্জ ক্যাম্পে অবস্থানকালে হজ্জযাত্রীগণ নিজ খরচে ও নিজ দায়িত্বে খাবার খাবেন।

আজিজিয়ায় থাকাকালীন সময়ে হজ্জ যাত্রী গন হারাম শরীফে যাতায়াত করতে ইচ্ছুক হলে সেক্ষেত্রে নিজ খরচে যাতায়াত করবেন। হজ্জের পরে আজিজিয়ায় অবস্থান চার দিনের বেশি হলে সেক্ষেত্রে এজেন্সির খরচে হারাম শরীফে যাতায়াতের ব্যবস্থা করা